আবাহনীকে বিধ্বস্ত করে গাজী গ্রুপের জয়

ইয়াসিন আরাফাতের দুর্দান্ত বোলিংয়ের পর ব্যাট হাতে জ্বলে উঠলেন জহিরুল ইসলাম। তুলে নিলেন হাফ সেঞ্চুরি। আর এতেই ৮ উইকেটে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স।

ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই গাজী গ্রুপের হয়ে দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নামা ইয়াসিনের বোলিং তোপে পড়ে আবাহনী। মাত্র ১২ রান তুলতেই সাজঘরে ফিরে যান দলটির প্রথম সারির পাঁচ ব্যাটসম্যান। সাইফ হাসান (১), নাজমুল শান্ত (০), নাসির হোসেন (০), আনামুল বিজয় (১০) ও মোসাদ্দেক (০) রান সাজঘরে ফিরলে চাপে পড়ে আবাহনী।


পঞ্চম উইকেটে মানান শর্মাকে সঙ্গে নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেন মোহাম্মদ মিঠুন। তবে ব্যক্তিগত ৪০ রানে টিপু সুলতানের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন এই ব্যাটসম্যান। আর ৪৬ রান করে মানান শর্মা সাজঘরে ফিরলে ১১৩ রানেই অলআউট আবাহনী।

গাজী গ্রুপের হয়ে ৮.১ ওভারে ৪০ রান দিয়ে ইয়াসিন আরাফাত একাই নেন ৮ উইকেট। লিস্ট এ ক্রিকেটে বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম বোলার হিসেবে ৮ উইকেট নিলেন তিনি। আর ক্রিকেট ইতিহাসের মাত্র ১১তম খেলোয়ার হিসেবে ৮ উইকেট নিলেন বাংলাদেশি এই তরুণ। এর আগে লিস্ট 'এ' ক্রিকেটে বাংলাদেশের সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড ছিল আব্দুর রাজ্জাকের। ২০০৩-০৪ মৌসুমে ঢাকায় জিম্বাবুয়ে 'এ' দলের বিপক্ষে ১৭ রানে ৭ উইকেট নিয়েছিলেন বাঁ-হাতি এই স্পিনার।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে অধিনায়ক জহিরুল ইসলামের ৫২ আর ফাওয়াদ আলমের ৩৯ রানের উপর ভর করে সহজেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় দলটি। মাশরাফি ৮ ওভারে ১৮ রান দিয়ে পান ১ উইকেট।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...