ডিজিটাল কৃষি সেবায় আসছে কৃষি সম্প্রসারণ বাতায়ন

কৃষক বান্ধব ডিজিটাল কৃষি সেবা প্রণয়ন, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তাদের পেশাগত যোগাযোগ এবং অভিজ্ঞতা বিনিময়ের জন্য সারা দেশে চালু হচ্ছে ‘কৃষি সম্প্রসারণ বাতায়ন (krishi.gov.bd)’।
বুধবার দেশের ১৪টি অঞ্চলে এক মাসের জন্য পরীক্ষামূলকভাবে ‘কৃষি সম্প্রসারণ বাতায়ন’ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে। সচিবালয়ে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পরীক্ষামূলক কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্প ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উদ্যোগে এটি বাস্তবায়িত হচ্ছে।
১৪ উপজেলার মধ্যে রয়েছে মনিকগঞ্জের দৌলতপুর, শেরপুরের নকলা, চাঁদপুরের সদর, সিলেটের বালাগঞ্জ, কক্সবাজারের পেকুয়া, রাঙামাটির বাঘাইছড়ি, রাজশাহীর দূর্গাপুর, সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ, রংপুরের পীরগঞ্জ, পঞ্চগড়ের বোদা, কুষ্টিয়ার মিরপুর, খুলনার রূপসা, পিরোজপুরের নাজিরপুর এবং রাজবাড়ীর পাংশা।
কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘এই বাতায়নের মাধ্যমে সারা দেশে ইউনিয়ন পর্যায়ের কৃষকরা শিগগিরই সেবাটি পাবেন। এখন টেলিভিশনে আপনারা কৃষি সংবাদ শোনেন। এখন থেকে কল সেন্টারে ফোন করতে পারবেন। সরাসরি দেখার সুযোগটি অচিরেই আপনাদের হাতে চলে আসবে।’
এটুআই প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার বলেন, ‘কৃষকদের সহায়তা দিতে কৃষিকে কেন্দ্র করে কৃষকের জানালা, কৃষকের ডিজিটাল ঠিকানা, বালাইনাশকসহ ১০টি উদ্যোগ রয়েছে। কিন্তু সবগুলোকে একটি বাস্কেটের মধ্যে আনা দরকার। বিচ্ছিন্ন হলে মানুষও বিভ্রান্ত হয়ে পড়ে। এজন্যই আজকের এই উদ্যোগ। আজকে পাইলটিং শুরু হবে।’
তিনি বলেন, ‘ইনশা আল্লাহ আমরা যদি এটি সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারি তবে আগামী ডিসেম্বর মাসে সারা দেশে আমরা এটি চালু করব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এটি উদ্বোধন করবেন।’
বাতায়নে কৃষকের যা যা দরকার তার সবই পাবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক আনোয়ার বলেন, ‘এটি হবে ইন্টারঅ্যাকটিভ (ভাবের আদান-প্রদান)। কৃষি ক্ষেত্রের যেসব কর্মকর্তা ও বিজ্ঞানীরা রয়েছেন তাদের অভিজ্ঞতা বিনিময়ের জন্য নেটওয়ার্কের ব্যবস্থা এখানে আমরা রেখেছি। কৃষকের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দিতে ফোন সেবাও থাকছে। কৃষক সরাসরি ফোন করে সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।’
jagonews24
কুষ্টিয়ায় অবস্থান করা কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোশারফ হোসেন ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত করে মাঠ পর্যায়ের কৃষি কর্মকর্তাদের পক্ষে বক্তব্য দেন।
তিনি বলেন, ‘এই বাতায়নের মাধ্যমে সারা দেশের কৃষকরা তথ্য আদান-প্রদানে এগিয়ে যাবে। কৃষক, কৃষি কর্মকর্তা, কৃষি মন্ত্রণালয় অর্থাৎ উপর থেকে নিচ পর্যন্ত সবার মধ্যে যে একটা যোগাযোগ স্থাপিত হবে। সেটা অনেক গর্বের বিষয়।’
এ সময় কৃষি সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...