ধর্মীয় সহিসংতায় ভারত বিশ্বে চতুর্থ

ধর্মীয় ইস্যু নিয়ে সহিংসতা ও হানাহানিতে বিশ্বের চতুর্থ খারাপ দেশ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার সাংবিধানিক ধর্মনিরপেক্ষ দেশ ভারত। এমনকি, দেশটির অবস্থান পাকিস্তান-আফগানিস্তানের চেয়েও পেছনে।

সাংবিধানিকভাবে ভারতে সব ধর্মের লোকজনের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের কথা থাকলেও বাস্তবের অবস্থা ভিন্ন।

বিশ্বের ১৯৮টি দেশের ওপর চালানো জরিপ নিয়ে ১১ এপ্রিল প্রতিবেদন প্রকাশ করে মার্কিন জরিপ সংস্থা ‘পিউ রিসার্চ সেন্টার’।

সামাজিক বিশৃ্ঙ্খলা ও ধর্মীয় সহিংসতার মাত্রার দিক দিয়ে ১৩০ কোটি মানুষের দেশ ভারতের আগে তালিকার প্রথমে রয়েছে সিরিয়া। তালিকার দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে নাইজেরিয়া ও ইরাক।

জরিপের তথ্য অনুয়ায়ী, পূববর্তী তিন বছরের মধ্যে ২০১৫ সালে শুধু ধর্মকে কেন্দ্র করে ভারতে সহিংসতার ঘটনা বেড়েছে তা নয়, দেশটিতে সংখ্যালঘুদের ধর্মীয় অধিকারে সরকারি হস্তক্ষেপ ও বিধিনিষেধ আরোপ, ধর্মকে ঘিরে সামাজিক অস্থিরতার ঘটনাও বৃদ্ধি পেয়েছে।

সেইসঙ্গে বর্ণ-ঘৃণাজনিত অপরাধ, হিংসা, সাম্প্রদায়িক হিংসা ও ধর্মভিত্তিক সন্ত্রাস, ধর্মীয় অনুশাসন মেনে পোশাক না পরায় নারীদের হয়রানি এবং ধর্মান্তরণের ঘটনাও ঘটেছে কট্টর হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপি সরকারের আমলে।

তালিকার প্রথমে অবস্থানকারী সিরিয়ার পয়েন্ট ৯.২। আর ভারতের পয়েন্ট ৮.৭। ধর্মীয় সহিসংতায় খারাপ রাষ্ট্রের তালিকায় ৫-এ রয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের বিষফোঁড়া ইসরায়েল, দেশটির পয়েন্ট ৮.২। এছাড়া ৭.২ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দশম স্থানে রয়েছে ভারতের চির প্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...