ইউএনওকে ফোন করে নিজের বিয়ে ভাঙল কিশোরী

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌরসভার আড়পাড়া গ্রামে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ছাদেকুর রহমানের কাছে ফোন করে নিজের বাল্যবিয়ে ভেঙেছে কিশোরী রত্না খাতুন (১৬)।

রত্না খাতুন ওই গ্রামের জাক্কু মিয়ার মেয়ে। সে এবার এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে।

বুধবার রাতে সে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ছাদেকুর রহমানের কাছে ফোন দিয়ে তার অমতে জোর করে বিয়ে দেয়ার কথা জানায়। পরে ইউএনও গিয়ে তাকে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা করেন।

জাগো নিউজকে রত্না বলে, আমি অবশ্যই বিয়ে করবো কিন্তু এখন না। এখন আমি সবে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছি। আমি আরও পড়তে চাই। জীবনে কারও অনুগ্রহ নিয়ে নয়, নিজের পায়ে দাঁড়াতে চাই।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ছাদেকুর রহমান জানান, আমি জানার পর গতকাল রাতে তার বাসায় ছুটে যাই। ওই কিশোরীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করি। বিয়ে বন্ধ হওয়ার পর রত্না অনেক খুশি। আমরা বাল্যবিয়ে বন্ধ করতে চাই।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...