প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানালেন দক্ষিণবঙ্গ কওমি উলামা মাশায়েখরা

কওমি মাদরাসার দাওরায়ে হাদিসকে স্নাতকোত্তর সমমান স্বীকৃতি দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন দক্ষিণবঙ্গ কওমি উলামা মাশায়েকরা।

মঙ্গলবার দুপুরে খুলনা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিনন্দন  জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, দক্ষিণবঙ্গ কওমি উলামা মাশায়েখ সংগঠনের মুখপাত্র এমদাদুল্লাহ কাশেমী।

লিখিত তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ২০২১ ও  ২০৪১ কে সামনে রেখে তার এ সিদ্ধান্ত একটি দৃষ্টান্ত। কওমি অঙ্গনের প্রায় ২০লাখ ছাত্রকে সামনে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। বিগত বিএনপি-জামায়াত তথা চারদলীয় ঐক্যজোট সরকারের আমলে কওমি মাদরাসার সনদ স্বীকৃতির দাবিতে আন্দোলন করা হয়েছিল।

শাইখুল হাদিস আল্লামা আজিজুল হক (রহ) এ দাবিতে মুক্তাঙ্গনে অবস্থান ধর্মঘট পালন করেছিলেন। তৎকালীন চারদলীয় জোট সরকার এসময় কোনো সৌজন্য রক্ষা করেনি। বরং তাদের সরকারের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগ মুহূর্তে ঘটা করে একটি প্রহসনের প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছিল।

গত ১১ এপ্রিল আল্লামা শাহ আহমাদ শফী, আল্লামা ফরিদ উদ্দিন মাসউদসহ শীর্ষস্থানীয় উলামা মাশায়েখদের উপস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের কওমি শিক্ষাকে স্বীকৃতি দিয়েছেন।এটি  ইতিহাস  স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

এ সময় বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে প্রধানমন্ত্রীকে সকল প্রকার সহযোগিতার ঘোষণা দেন আলেমরা।

এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে তিনদফা দাবি তুলে ধরা হয়। দাবিগুলো হচ্ছে- কওমি শিক্ষাকে স্বীকৃতি দেয়া প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা দ্রত বাস্তবায়ন, দেশ সেবায় কওমি মাদরাসা শিক্ষার্থীদের অবাধ সুযোগ প্রদান ও দেশের সর্বোচ্চ বিচারালয় সুপ্রিম কোর্টের সামনে থেকে গ্রিক দেবীর মূর্তি অপসারণ।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...