শুটিং স্পটের সন্ধানে নৌভ্রমণে যাচ্ছে এফডিসি

ঢাকাই ছবিতে বৈচিত্র আনার জন্য চলচ্চিত্র সংশিষ্ট পরিচালক-প্রযোজকরা নিয়েছেন নতুন এক উদ্যোগ। সেটা হচ্ছে, ছবির শুটিং লোকেশনের পরিবর্তন। 

অধিকাংশ ছবির শুটিং করা হয় কক্সবাজার সাগর পাড়ে এবং গাজীপুরের পূবাইলে, উত্তরার বিভিন্ন লোকেশন বা চিরচেনা কোনো স্পটে। এই একই লোকেশন দেখতে দেখতে দর্শকরা হাঁপিয়ে উঠেছেন, কিছুটা বিরক্তও হন! এই বিরক্তি অনুভব করছেন পরিচালক-প্রযোজকরাও।

সেকারণে তারাও চাচ্ছেন নতুন লোকেশনে ছবির শুটিং। তাই শুটিং লোকেশন দেখতে এবার নৌবিহারে যাচ্ছেন পরিচালক সমিতির সদস্যরা ও এফডিসি সংশ্লিষ্ঠ ব্যক্তিরা।  দেশের দক্ষিণের বিভিন্ন দ্বীপে ঘুরে বেড়াবেন তারা।

এ প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার জাগো নিউজকে বলেন, ‘চলচ্চিত্রের লোকেশনে বৈচিত্র আনা এবং এর মাধ্যমে আমাদের দেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য চলচ্চিত্রে তুলে ধরার জন্য এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আগামী ৮ মার্চ থেকে ১২ মার্চ আমরা সবাই দেশের দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি দ্বীপে যাচ্ছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘পরিচালক সমিতির সদস্য ছাড়াও আমাদের সঙ্গে থাকবেন চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিবেশক, প্রদর্শক, চিত্রগ্রাহক, নৃত্যপরিচালকরা থাকবেন।’

চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির যুগ্ম-মহাসচিব ও লোকেশনের সন্ধানে কমিটির আহ্বায়ক শাহীন সুমন বলেন, ‘আমাদের এই আয়োজনে আসন সংখ্যা সীমিত, মাত্র ৫৪ জন। আমরা চলচ্চিত্রের প্রয়োজনে সেখানে যাচ্ছি, কোনো বনভোজনে নয়। আশা করছি, আমাদের এই উদ্যোগ সফল হবে।

শাহীন সুমন জানান, এই আয়োজনে শামিল হতে চাঁদার হার ১২০০০ টাকা ধার্য্য করা হয়েছে। চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ঠ যারা যেতে চান আগামী ২০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে পরিচালক সমিতির স্টাডি রুমে এসে যোগাযোগ করতে হবে তাদের। তবে এখানে কোনো নারী ও শিশু যেতে পারবেন না।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...