সাত ঘণ্টা ফ্রিজে রেখে জোড়া লাগল বিচ্ছিন্ন কব্জি

বাঁচার কথা ছিল না। আর বাঁচলেও বিচ্ছিন্ন অঙ্গ ফেরত পাওয়ার কথা নয়। কিন্তু দুটিই হয়েছে। অস্ত্রোপচারে স্বাভাবিক সময় ফিরে পেলেন চল্লিশ বছরের সরলা জৈন।

দুষ্কৃতকারীর ধারালো অস্ত্রের এলোপাতাড়ি কোপে ছিন্নভিন্ন হয়েছিলেন জৈন দম্পতি। শনিবার কলকাতার কালী টেম্পল রোডে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাতে কেঁপে উঠেছিল শহর। সেই সঙ্গেই হতবাকও হয়েছিলেন চিকিৎসকেরা। বীভৎস অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছিল গুরুতর জখম সরলা দেবীকে। ভেঙে যায় মুখের সব হাড়। মাথার খুলি রক্তাক্ত। ডান হাত ধারালো অস্ত্রের কোপে ক্ষতবিক্ষত।

প্লাস্টিক সার্জন অনুপম গোলাশ বলেন, রক্তচাপ অবস্থায় ছিলেন তিনি। তৎক্ষণাৎ অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন ছিল, কিন্তু অস্ত্রোপচারের মতো শারীরিক অবস্থা ছিল না তার।  তাই বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া হাতের অংশটি ফ্রিজে রেখে দিতে হয়েছিল। পরের দিন রোগীর শারীরিক অবস্থা স্বাভাবিক হলে অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সাত ঘণ্টা পর জোড়া লাগে তার হাত।

চিকিৎসকদের মতে, বিচ্ছিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ জুড়ে ঘটনা আগেও একাধিকবার হয়েছে । কিন্তু বিচ্ছিন্ন অঙ্গকে এতটা সময় ধরে ফ্রিজে সংরক্ষণ করে রেখে, সেটিকেই আবার জুড়ে দেয়ার নজির কম।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...