রিভিউ কাজে আসলো না বিরাট কোহলির

ইশান্ত শর্মার বলে জোরালো আবেদন। বিরাট কোহলি থেকে শুরু করে ভারতীয় দলের সব ফিল্ডার যোগ দিলেন তাতে। কোনো একটা উইকেটের জন্য এত জোরালো আবেদন সাধারণত কাউকে করতে দেখা যায় না। আম্পায়ার দ্বিধাদ্বন্দে থাকলেও জোরালো আবেদনের কারণে আঙ্গুল তুলে দেন; কিন্তু এবার হলো ভিন্ন। আম্পায়ার জোয়েল উইলসন ক্রমাগত মাথা নেড়ে গেলেন। সঙ্গে সঙ্গে কোহলি ইশারা করলেন, রিভিউ চান তিনি।

জোয়েল উইলসন টিভি আম্পায়ারকে নির্দেশ দিলেন রিভিউ করে দেখার জন্য। টিভি আম্পায়ার ক্রিস গ্যাফেনি খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখলেন। হক আই ভিউতেও চেক করলেন। শেষে দেখা গেলো, ব্যাটে কিংবা গ্লাভসে নয়, মুশফিকুর রহীমের বাহুতে লেগে গিয়েছে উইকেটরকক্ষম ঋদ্ধিমান সাহার হাতে। বাহুতে বল লাগার যে আওয়াজ হয়েছিল, তাতেই এমন জোরালো আবেদন উঠেছিল কোহলিদের। আম্পায়ার ঠিকই বুঝতে পেরেছিলেন, এটা আউট নয়।

আবারও রিভিউ চেয়ে হেরে গেলেন বিরাট কোহলি। এ নিয়ে তৃতীয়বার। মুশফিকের বিপক্ষে এমন এক সময়ে রিভিউ চাইলেন যে, তখন তিনি একেবারে সেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে (৯৫ রান) দাঁড়িয়ে। ভারতীয় দলের বোলারদের সামনে বিশাল পর্বত হয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। উমেশ যাদব, ভুবনেশ্বর কুমার, ইশান্ত শর্মা, রবিন্দ্র জাদেজা আর রবিচন্দ্রন অশ্বিনের সামনে বিশাল বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন মুশফিকুর রহীম। তাকে ফেরাতে পারলেই তো কাজটা সহজ হয়ে যায়।

হায়দরাবাদ টেস্টের তৃতীয় দিনের ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলির আরও দুটি রিভিউ খারিজ করে দিয়েছিলেন আম্পায়ার। প্রথম রিভিউটা ছিল মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের জন্য। খালি চোখে দেখেই মনে হচ্ছিল ইশান্ত শর্মার বলটি লেগ স্ট্যাম্প মিস করছে; কিন্তু কোহলি রিভিউ চেয়ে বসলেন। ডিআরএসে দেখা গেল, সত্যিই বল মিস করে যাচ্ছে।

এরপর আরও একবার সাকিব আল হাসানের জন্য রিভিউ নেন বিরাট কোহলি। বোলার ছিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। সাকিবের বল ব্যাটে লেগে মাটিতে ড্রপের পর ফিল্ডারের কাছে পৌঁছালেও অশ্বিনের মনে হয়েছিল সরাসরি ক্যাচ হয়েছে। কাছাকাছি থাকা সব ফিল্ডার একত্র হয়ে নিজেদের একই সন্দেহের কথা জানালে কোহলি রিভিউ নেন; কিন্তু ডিআরএসে তার আবেদন প্রত্যাখ্যাত হয়। উভয় ক্ষেত্রেই অবশ্য কোহলির চেয়ে সংশ্লিষ্ট বোলাররাই আউট নিয়ে বেশি উৎসাহ দেখিয়েছেন; কিন্তু দুটি রিভিউই নষ্ট হওয়ায় বাংলাদেশ ইনিংসের ৮০ ওভারের আগ পর্যন্ত রিভিউ নেওয়ার সুযোগ হয়নি কোহলির।

চতুর্থ দিন সকালেই দ্রুত দুটি উইকেট তুলে নেন কোহলির বোলাররা। আরও দ্রুত বাংলাদেশকে অলআউট করতে বদ্ধপরিকর বিরাট কোহলি। সে জন্যই হয়তো ইশান্ত শর্মার বলে মুশফিকের আউটের জন্য রিভিউটা চেয়ে বসলেন কোহলি। এবার তিনি সতীর্থদের সঙ্গে আলাপের প্রয়োজনই মনে করলেন না। কিন্তু এবারও তার আবেদন খারিজ করলেন আম্পায়ার।

এর আগে প্রথম দু`দিনে ঠিক সময়ে রিভিউ চাইতে পারেনি বাংলাদেশ। উল্টো বিরাট কোহলির এলবি আউট চেয়ে হাস্যকর এক রিভিউ চেয়েছিলেন মুশফিকুর রহীম। এ নিয়ে প্রচুর সমালোচনাও হয়েছে বাংলাদেশ অধিনায়কের।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...