ব্রেক্সিট বিলে অনুমোদন

দীর্ঘ বিতর্কের পর অবশেষে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে অনুমোদন পেয়েছে ব্রেক্সিট সংক্রান্ত একটি বিল। ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে আসতে ব্রিটিশ এমপিদের এই পদক্ষেপকে ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যের হাউজ অব কমন্সে লিসবন চুক্তির ৫০ নম্বর অনুচ্ছেদ অনুযায়ী ব্রেক্সিট কার্যকরের প্রক্রিয়া সম্পর্কে আলোচনা শুরু করতে দুই ধারাবিশিষ্ট ইউরোপীয় ইউনিয়ন (নোটিফিকেশন অব উইথড্রয়াল) বিল ২০১৬-১৭ উত্থাপন করা হয়। 

এই বিলের পক্ষে ৪৯৪ জন এবং বিপক্ষে ১২২ জন পার্লামেন্ট সদস্য ভোট দিয়েছেন। বুধবার কোনও সংশোধন ছাড়াই বিলটিতে অনুমোদন দেয়া হয়। টানা তিনদিন বিতর্কের পর এই বিলটি অনুমোদন পেলো। ফলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে বেরিয়ে আসা ব্রিটেনের জন্য আরো সহজ হয়ে গেলো। 

ব্রিটেনের বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন বিলটির পক্ষে ছিলেন। নিজ দলের এমপিদের বিলটির পক্ষে ভোট দিতে নির্দেশনা দিয়েছিলেন তিনি। 

অনুমোদন পাওয়া বিলটি আগামী সপ্তাহে হাউস অব কমন্সে ফেরত পাঠানো হবে। সেখানে বিরোধী দলগুলো এতে সংশোধনী আনার চেষ্টা করবে। এরপর বিলটি নিয়ে বিতর্কসহ অনুমোদনের জন্য এটি হাউস অব লর্ডসে পাঠানো হবে। হাউস অব লর্ডস এটি সংশোধনের পরামর্শ দিতে পারবে।

এর ফলে সামনের মাস থেকেই আনুষ্ঠানিকভাবে ব্রেক্সিট নিয়ে আলোচনা শুরু করতে পারবে ব্রিটেন। আগামী ৭ মার্চের মধ্যে নতুন ব্রেক্সিট বিল পাসের জন্য হাউস অব লর্ডসকে আহ্বান জানানো হয়েছে। 

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...