গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি : বামদলগুলোর হরতাল ‘অযৌক্তিক’

গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদের আধাবেলা হরতাল কর্মসূচিকে ‘অযৌক্তিক’ মনে করছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা।
 
গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি দেশব্যাপী আধাবেলা হরতাল ডেকেছে দল দুটি। কর্মসূচিতে তেল-গ্যাস খনিজ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির পাশাপাশি বিএনপি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডিও সমর্থন জানিয়েছে।

এছাড়া আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের শরীক জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ এবং ওয়ার্কার্স পার্টিও গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সরকারি  সিদ্ধান্তকে ‘অযৌক্তিক’ বলে বিবৃতি দিয়েছে।
 
তবে আওয়ামী লীগ নেতারা মনে করেন ‘সস্তা জনপ্রিয়তা’ পেতে গ্যাসের ‘যৌক্তিক’ মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। পাশাপাশি তারা মনে করেন, হরতালের মতো কর্মসূচি না দিয়ে অন্য কর্মসূচি দিলে জনগণের ভোগান্তি হতো না।
 
এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক বলেন, দেশের স্বার্থেই গ্যাসের মূল্য বাড়ানো হয়েছে। যারা হরতাল ডেকেছে তাদের প্রতি অনুরোধ, তারা যেন সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে এই কর্মসূচি বাতিল করেন। কারণ, এসব হরতালে মানুষের ক্ষতি হয়। চলাচল বিঘ্নিত হয়। আওয়ামী লীগ মনে করে এই হরতাল অবিবেচিত সিদ্ধান্ত।
 
একই দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুর রহমান বলেন, গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি অসহনীয় পর্যায়ের যাওয়ার মতো কিছু হয়নি। গ্যাস সংরক্ষণ, উত্তোলণ ও সঞ্চালনের জন্য ব্যয় ভার আছে। দেশের অর্থনৈতিক সূচকে নানাভাবে প্রবৃদ্ধি অর্জন হচ্ছে। সুতরাং গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি অস্বাভাবিক বা অযৌক্তিক নয়। সস্তা  জনপ্রিয়তার জন্য হরতাল ডাকা অযৌক্তিক। আমরা আশা করবো তারা হরতাল প্রত্যাহার করবেন।  
 
দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘অন্যান্য দেশের তুলনায় গ্যাসের দাম বাংলাদেশে অনেক কম। মূল্যবৃদ্ধির পরও এই খরচ অনেক কম। মূল্য সমন্বয় করার জন্য মূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে। ভর্তুকি কমানোর জন্য গ্যাসের এই মূল্যবৃদ্ধি। কারো প্রতিবাদ জানানোর অধিকার আছে। হরতাল না ডেকে প্রতিবাদের ভাষা ভিন্ন হলে জনগণের ভোগান্তি হতো না।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...