পুলিশি হেফাজতে ফ্লোরিডার হামলাকারী

ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের ফোর্ট লদারদেল বিমানবন্দরে বন্দুক হামলা চালিয়ে পাঁচজনকে হত্যার দায়ে সন্দেহভাজন এক বন্দুকধারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে যুক্তরাষ্ট্র পুলিশ। শুক্রবার দুপুরের দিকে ওই হামলায় আহত হয়েছে আরো অন্তত ৮জন।  সন্দেহভাজন হামলাকারী ইরাক যুদ্ধ থেকে ফেরা মার্কিন সেনা। 

পুলিশ বলছে, ইরাক যুদ্ধের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন ২৬ বছর বয়সী এস্তেবান স্যান্টিয়াগো ফোর্ট বিমানবন্দরে হামলা চালিয়েছে। দেশটির কর্মকর্তারা বলছেন, হামলার সম্ভাব্য উদ্দেশ্য হিসেবে সন্ত্রাসবাদকে তারা একেবারেই উড়িয়ে দিচ্ছেন না। 

যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম বলছে, হামলাকারী মানসিকভাবে বিকারগ্রস্ত হয়ে থাকতে পারেন। এর আগে তিনি একটি জিহাদি ভিডিওতে নিজেকে ধারণ করে বলেছিলেন, সরকার তার মন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। 

Airport

বিবিসি বলছে, বিমানবন্দরের টার্মিনাল-২ এ যাত্রীরা লাগেজ সংগ্রহের সময় হামলাকারী ওই সেনা গুলিবর্ষণ শুরু করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, হামলাকারী ওই টার্মিনালে হাঁটছিলেন এবং গুলি চালানোর সময় যখন লোকজন পালানোর চেষ্টা করছিল তখন তিনি কিছু বলেননি। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গোলাবারুদ ফুরিয়ে যাওয়ার পর হামলাকারী পুলিশের কাছে আত্মসমর্পন করেন। 

বার্তাসংস্থা এপি এক প্রতিবেদনে বলছে, ২৬ বছর বয়সী স্যান্টিয়াগোর কাজে সন্তুষ্ট না হওয়ায় কর্তৃপক্ষ তাকে গত বছর ইরাক থেকে দেশে ফিরিয়ে আনে। তার ভাই বলেছেন, সম্প্রতি তিনি (হামলাকারী) মানসিক চিকিৎসা নিয়েছেন। 

Airport

মার্ক লি নামের এক প্রত্যক্ষদর্শী এমএসএনবিসিকে বলেন, লোকজন চিৎকার ও কান্নাকাটি করছিলেন, বের হওয়ার জন্য দরজা খুঁজছিলেন অথবা চেয়ারে নিচে পালিয়েছিলেন। কিন্তু টার্মিনালের লোকজনকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়েছেন হামলাকারী। এটার কোনো কারণ ছিল না। 

আইন প্রয়োগকারী সংস্থার এক কর্মকর্তা এপিকে বলেন, স্যান্টিয়াগো গত নভেম্বর আনকোরেজে এফবিআই’র অফিস গিয়ে বলেছিলেন যে, সরকার তার মন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। 

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...