সংসদে ৬০টি আসন চায় সংখ্যালঘুরা

নির্বাচন কমিশনে সংখ্যালঘু প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছে ধর্মীয়-জাতিগত সংখ্যালঘু সংগঠনগুলোর জাতীয় সমন্বয় কমিটি। একইসঙ্গে সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রণয়ন করে যুক্ত নির্বাচনের ভিত্তিতে জাতীয় সংসদে ৬০টি আসন সংখ্যালঘুদের জন্য সংরক্ষণের দাবিও জানানো হয়েছে।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক অবস্থান কর্মসূচি থেকে এ দাবি জানানো হয়।

অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, এমন কোনো নির্বাচন নেই, যে নির্বাচনে সংখ্যালঘুরা অহেতুক নিগৃহীত, নিপীড়ন ও নির্যাতনের শিকার হয়নি। অতীতে যেসব নির্বাচন কমিশন গঠিত হয়েছে সেসব নির্বাচন কমিশনের পূর্বাপর সময়ে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের আশ্বাস দিলেও দেখা গেছে, তা সবই আপ্তবাক্য মাত্র। বাস্তবে এর কোনো প্রতিফলন দেখা যায়নি।

বক্তারা আরো বলেন, নির্বাচনের ব্যাপারে সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী ক্রমশ আস্থা হারিয়ে ফেলতে শুরু করেছে; যা গণতন্ত্র প্রাতিষ্ঠানিকীকরণের জন্য শুভ নয়। নির্বাচনী ব্যবস্থার উপর যাতে ধর্মীয়-জাতি গোষ্ঠী আশা ও আস্থায় বুক বাধতে পারে এবং নির্বাচন কমিশনে তাদের অংশীদারিত্ব ও প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত হয় সে ব্যাপারে বক্তারা রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন জানান।

বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি এবং সমন্বয় কমিটির সমন্বয়ক এ্যাড. রানা দাশগুপ্তের সভাপতিত্বে এ অবস্থান কর্মসূচীতে বেশ কয়েকটি সংগঠনের ব্যানারে সংখ্যালঘুরা অংশগ্রহণ করেন।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...