দিনাজপুরের সেই শিশুটির অস্ত্রোপচার চলছে

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন দিনাজপুরের ধর্ষণের শিকার সেই পাঁচ বছরের শিশুটির দেহে অস্ত্রোপচার চলছে। সম্প্রতি শিশুটির চিকিৎসার জন্য গঠিত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা সোমবার সকাল ৯টা থেকে অস্ত্রোপচার শুরু করেন বলে নিশ্চিত করেছেন ঢামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. খাজা মো. আবদুল গফুর।

তিনি জানান, নয় সদস্যের বোর্ড হলেও প্রয়োজন না থাকায় সবাই অংশগ্রহণ করছেন না। গাইনি, সার্জারি ও বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জরি বিশেষজ্ঞরা অংশগ্রহণ করেছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওসিসির একাধিক কর্মকর্তা জানান, সকালে ছোট এই শিশুটিকে যখন ওসিসি থেকে ওটিতে নেয়া হচ্ছিল তখন তার মা কান্নাকাটি করেন। শিশুটিকে ওটিতে ঢোকাতে দেখে একজন আরেকজনের কাছে জানতে চান কেন শিশুটিকে ওটিতে নেয়া হচ্ছে। এর আগে সপ্তাহ জুড়ে তার অপারেশন পূর্ববর্তী এক্সরে, ইসিজি ও ব্লাডসহ বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়।

চিকিৎসকরা জানান, ধর্ষক শিশুটির গোপনাঙ্গে ব্লেড দিয়ে আঘাত করায় প্রস্রাব করার অঙ্গে সমস্যা হয়। আজ চিকিৎসকরা রিকনস্ট্রাকটিভ সার্জারির মাধ্যমে শিশুটির গোপনাঙ্গ তৈরি করবেন।

উল্লেখ্য, গত ১৮ অক্টোবর দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলায় পাঁচ বছরের এই শিশুটিকে ধর্ষণ করে হলুদ ক্ষেতে ফেলে রেখে যায় এক নরপশু। পরে সেখান থেকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতাল এবং পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে সেখান থেকে শিশুটি এখন ঢামেক ওসিসিতে।

ওই ঘটনার পর শিশুটির বাবা ২০ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। মামলার এজাহারভুক্ত আসামিরা হলেন-সাইফুল ইসলাম ও আফজাল হোসেন কবিরাজ। পরে গত ২৪ অক্টোবর (সোমবার) রাতে দিনাজপুর শহর থেকে সাইফুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...