বিবিআইএন গাড়ি চলাচলে সম্মতি নেই ভুটান পার্লামেন্টের

ভুটান পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ ‘ন্যাশনাল কাউন্সিল’ বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপাল (বিবিআইএন) চার দেশীয় মোটরযান (গাড়ি) চলাচল চুক্তিসংক্রান্ত একটি বিল নাকচ করেছে। গত মঙ্গলবার ‘ন্যাশনাল কাউন্সিল এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় প্রস্তাবিত এ চুক্তি বাস্তবায়নের পুরো প্রক্রিয়াই এখন ভেস্তে যেতে পারে।’

তবে পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ বিলটি নাকচ করলেও ভুটান সরকার এখনো আশা ছাড়েনি। ন্যাশনাল কাউন্সিলের সদস্যদের বিষয়টির গুরুত্ব বুঝিয়ে রাজি করানো যাবে বলে মনে করছেন তারা।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৫ জুন বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপালের যোগাযোগমন্ত্রীরা বিবিআইএন মোটরযান চলাচল চুক্তি স্বাক্ষর করেন। উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতার ক্ষেত্রে এ চুক্তিকে মাইলফলক হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

ভুটানের শীর্ষস্থানীয় পত্রিকা কুয়েনসেলে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী দামচো দরজি গত সপ্তাহে এক ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে ন্যাশনাল কাউন্সিল সদস্যদের কাছে বিবিআইএনের প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন। কিন্তু এরপরও তারা ওই চুক্তি অনুমোদন সংক্রান্ত বিল নাকচ করেছেন।

জানা গেছে, মাত্র পাঁচজন সদস্য বিলের পক্ষে ভোট দেন। অন্যদিকে ১৩ জন সদস্য ভোট দেন বিপক্ষে। এছাড়া ভোট দেওয়া থেকে বিরত থাকেন পাঁচজন সদস্য।

ভুটানের সংসদের আইনসংক্রান্ত কমিটির চেয়ারম্যান সোনম ওয়াংচুক বলেন, বিবিআইএন মোটরযান চলাচল চুক্তি বাস্তবায়িত হলে সুবিধার চেয়ে অসুবিধাই বেশি হবে। কমিটি মনে করে, ওই চুক্তি ভুটানের বিভিন্ন আইন, বিশেষ করে অভিবাসন আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

ওয়াংচুক বলেছেন, প্রস্তাবিত চুক্তিটি ভুটানের সংস্কৃতি, ধর্ম ও অর্থনীতির ওপর প্রভাব ফেলতে পারে। এমনকি তাতে দেশের নিরাপত্তার ঝুঁকিও দেখা দিতে পারে।

তিনি বলেন, ‘এ চুক্তির ফলে ভুটানে অনেক লোক ঢোকার ঝুঁকি রয়েছে। আর আমরা জানি না তারা কী উদ্দেশ্যে আসছে।’

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...