উত্তর দেওয়ার শব্দ দুষ্প্রাপ্য’ কিন্তু ‘প্রশ্নগুলো সহজ,

ছোট্ট ছেলেটির সামনেই মা মাহমুদা খানম মিতুকে হত্যা করে ঘাতকরা। মায়ের রক্ত রঞ্জিত হয় তার জুতা। সেই স্মৃতি ছোট্ট ছেলেটি হয়তো কখনই ভুলতে পারবে না। এসপি বাবুল আকতারের স্ত্রী মিতু হত্যা নিয়ে অনেক জল ঘোলা হয়েছে। কিন্তু মেলেনি কোনও সদুত্তর। মিতুকে নিয়ে বাবুল এ পর্যন্ত তার অনুভূতি প্রকাশও করেননি।
স্ত্রী হত্যার ৬৯ দিনের মাথায় নিজের ফেসবুক পেজে লেখা স্ট্যাটাসে বাবুল আকতার স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে লিখেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘গোলকধাঁধার মারপ্যাঁচ বুঝার বয়স কী হয়েছে মায়ের মৃত্যুর সাক্ষী ছেলেটার? তার প্রশ্নগুলো সহজ, কিন্তু উত্তর দেওয়ার মত শব্দ দুষ্প্রাপ্য।’
তিনি আরও লিখেছেন, ‘যখন মা হারানো মেয়েটার অযথা গড়াগড়ি দিয়ে কান্নার শব্দ কেবল আমিই শুনি, তখন অনেকেই নতুন নতুন গল্প বানাতে ব্যস্ত। আমি তো বর্ম পড়ে নেই, কিন্তু কোলে আছে মা হারা দুই শিশু। আঘাত সইতেও পারি না, রুখতেও পারি না।এরপর আর কোনও ভোর আমার জীবনে সকাল নিয়ে আসেনি। সন্তান দুটো এবং আমি আর স্নেহের ছায়ায় ঘুমাইনি। এরপরই আমি বুঝেছি সংসার কী।’

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...