জুলাই-২০১৬ ছিল ১৩৬ বছরের তপ্ততম মাস

জলবায়ুর হিসাব-নিকাশ রাখে এমন দুটি প্রধান সারির বৈশ্বিক সংস্থা নাসা ও ন্যাশনাল ওসেনিক অ্যাটমোসফেরিক অ্যাডমিন্সট্রেশন (নোয়া) উভয়ই বলেছে ২০১৬’র জুলাই মাসটি ছিলো তপ্ততম জুলাই। আর কেবল তাই নয়, যতদিন ধরে রেকর্ড রাখা হয়েছে, ততদিনে এত গরম একটি মাস আর কোনও কালেই ছিলো না।
বুধবার নোয়া তার একটি রিপোর্টে বলেছে, জুলাইয়ে বৈশ্বিক উত্তাপ ছিলো ৬২.০১ ডিগ্রি যা বিংশ শতাব্দীর গড় উত্তাপের চেয়ে ১.৫৭ ডিগ্রি বেশি। আর নাসা গত সোমবার জানিয়েছে এবছরের জুলাইয়ের তাপমাত্রা গড় মাত্রার ১.৫১ ডিগ্রি বেশি। উভয় সংস্থাই বলেছে, ১৮৮০ সাল থেকে যে রেকর্ড রাখা হচ্ছে তার মধ্যে এবারের জুলাইই ছিলো তপ্ততম মাস।
বিজ্ঞানীরা এই অবস্থার সঙ্গে বিশ্ব উষ্ণায়নের সংযোগই খুঁজে পাচ্ছেন। যে কারণে বিশ্বের গড় তাপমাত্রা ক্রমেই বাড়ছে। আর যখন তখনই অস্বাভাবিক আবহাওয়াগত ঘটনা-দুর্ঘটনা ঘটে চলেছে।
এর আগে ২০১৫ সালের জুলাই ছিলো সর্বোচ্চ তাপমাত্রার মাস, যে রেকর্ড এ বছর ভাঙলো। কারণ এই সময়ে উত্তর গোলার্ধে মৌসুমী তাপমাত্রা সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছায়।

বিশ্বের ৬ হাজার ৩০০টি স্থান থেকে স্যাম্পল নিয়ে নাসা তার তাপমাত্রার হিসাব তৈরি করে।

বিশ্ব উষ্ণায়নের পাশাপাশি এবারে সৃষ্ট এলনিনোর কারণেই বিশ্ব আজ এই তপ্ত পরিস্থিতির শিকার বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...