‘দেশকে সেরাটা দেওয়ার এখনও অনেক বাকিঃ আশরাফুল

বাংলাদেশের ক্রিকেটের ‘নক্ষত্র’ হয়েই এসেছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। সর্বকনিষ্ঠ এ টেস্ট সেঞ্চুরিয়ানের ব্যাট মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখতো ক্রিকেটপ্রেমীদের। দেশসেরা ক্রিকেটারের তকমা পাওয়া আশরাফুল বাংলাদেশের ক্রিকেটকে কলঙ্কের কালিমাও লেপ্টে দেন বিপিএলে ম্যাচ ফিক্সিং করে। শাস্তিস্বরুপ ভোগ করেন তিন বছরের নিষেধাজ্ঞা। তবে আজ থেকে (১৩ আগস্ট, ২০১৬ ) আর ‘নিষিদ্ধ ক্রিকেটার’ নন তিনি।
তিন বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষ করে ‍আজ থেকে মুক্ত আশরাফুল এখন ঘরোয়া ক্রিকেটে ফেরার অপেক্ষায়। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা, আইসিসির ‘গুড ‍অব কন্ডাক্ট’ সার্টিফিকেট পেলেই  ঘরোয়া লিগে খেলতে কোনো বাধা থাকবে না আশরাফুলের। দুই-এক দিনের মধ্যেই সেটি বিসিবির কাছে পাঠাবে আইসিসি। শনিবার (১৩ আগস্ট) মিরপুরে সংবাদমাধ্যমকে এমনটা জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন।
বিপিএল ছাড়া বিসিবির সব টুর্নামেন্টেই খেলতে পারবেন আশরাফুল। যদিও জাতীয় দলে বিবেচনায় আসতে তাকে অপেক্ষা করতে হবে আরও দুই বছর।
ঘরোয়া ক্রিকেটে মুক্তির দিন (১৩ আগস্ট) লন্ডন থেকে দেশে ফেরেন আশরাফুল। বিমানবন্দরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে আশার কথাই শোনালেন এই ক্রিকেটার, ‘দেশের জন্য সেরাটা দেওয়ার এখনও বাকি। হয়তো আমি সে সুযোগ পাব। আমি জানি লড়াই করেই আমাকে ফিরতে হবে। মানসিকভাবে সে চ্যালেঞ্জ নিতে আমি প্রস্তুত।’
২০১৩ সালের ১৩ আগস্ট প্রাথমিকভাবে আট বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন আশরাফুল। পরে সেই নিষেধাজ্ঞা কমিয়ে পাঁচ বছরে আনা হয়। সাথে আরও একটা শর্তও জুড়ে দেয়া হয়। বিসিবি ও আইসিসির অধীনে আয়োজিত দুর্নীতি বিরোধী কর্মশালা ও ট্রেনিং প্রোগ্রামে নিয়মিত অংশ নিলে আরও দুই বছরের সাজা মওকুফ হবে আশরাফুলের। তিন বছরে কমে আসা শাস্তির ব্যাপারটি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না।

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...