না.গঞ্জে ৫ খুন : চিনতে পারায় দুই শিশুকেও হত্যা

পুুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি মাহফুজুল হক নুরুজ্জামান বলেন, শিশুরা কখনো টার্গেট হতে পারে না। চিনে ফেলবে বা সাক্ষ্য দিবে এজন্যই দুই শিশুকে হত্যা করা হয়েছে। আপাতদৃষ্টিতে আমার কাছে এমনটিই মনে হয়েছে।

রোববার বেলা পৌনে ১১ টায় নারায়ণগঞ্জের শহরের ২নং বাবুরাইলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। এ সময় নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার ড. খন্দকার মহিদ উদ্দিনসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ডিআইজি আরও বলেন, দুই শিশুসহ একই পরিবারের ৫ জনকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। তার মধ্যে ৩ জনের মাথায় আঘাত করা হয়েছে। ওই ফ্ল্যাট থেকে খাবার, হালুয়া রুটিসহ অন্যান্য সামগ্রী জব্দ করা হয়েছে। এছাড়া যে সকল কারণ ছিল সবগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বিজ্ঞানের যুগে সবগুলো প্রযুক্তিই ব্যবহার করা হচ্ছে। সবচেয়ে গুরুত্ব দিয়েই তদন্ত করা হচ্ছে। তবে মামলার ক্ষতি হবে এমন কোনো মন্তব্য করা ঠিক হবে না।

এর আগে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে র্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহম্মেদ সাংবাদিকদের বলেন, এটি একটি নৃশংস হত্যাকাণ্ড। জেলা পুলিশ ও অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থার পাশাপাশি র্যাবও ছায়া তদন্ত শুরু করেছে। সবগুলো কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আশা করছি দ্রুততম সময়ের মধ্যে রহস্য উদঘাটন করে জনমনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনতে পারবো।

২ জনকে আটকের বিষয়ে তিনি বলেন, তাদের আটক নয় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেয়া হয়েছে। খুনিরা পেশাদার কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, খুনিরা পেশাদার নাকি অপেশাদার সেটা এখনই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। পারিবারিক বিরোধ সম্ভাব্য একটি কারণ হতে পারে।

এদিকে রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নিহত তাসলিমার স্বামী গাড়ি চালক শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় অজ্ঞােদের আসামি করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মালেক এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এছাড়া নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল মর্গে নিহতদের মরদেহ রাখা হয়েছে। হাসপাতালের আরএমও ডা. আসাদুজ্জামান বলেন, পুলিশ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে আসলে ময়নাতদন্তের কাজ শুরু হবে।

প্রসঙ্গত, শনিবার রাতে নারায়ণগঞ্জ শহরের ২নং বাবুরাইল খানকা মোড় এলাকার একটি ফ্লাট বাড়িতে একই পরিবারের পাঁচজনকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহতরা হলেন- তাসলিমা (৩৫), তার ছেলে শান্ত (১০), মেয়ে সুমাইয়া (৫), তাসলিমার ছোটভাই মোরশেদুল (২২) ও তাসলিমার জা লামিয়া (২৫)। তাদের গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার চরভেলাবাড়ি। তারা শহরের বাবুরাইল ২নং এলাকার খানকামোড় এলাকার আমেরিকান প্রবাসী ইসমাইলের বাসায় ভাড়া থাকতেন। এ ঘটনায় ২ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করেছে সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিট। 

,

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...