গাজীপুরে বয়লার বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭

গাজীপুরের পূবাইল এলাকায় স্মার্ট মেটাল অ্যান্ড কেমিক্যাল লিমিটেডে টায়ার থেকে তেল তৈরি কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণের ঘটনায় দগ্ধ আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ওই কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৭ জনে। তিনি মঙ্গলবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

ঢাকা মেডিকলে কলেজ হাসপাতাল ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মোজাম্মেল হোসেন জানান, সকাল ৭টার দিকে কামাল হোসেন (৪৯) মৃত্যুবরণ করেন। জানা গেছে, তিনি স্মার্ট মেটাল অ্যান্ড কেমিক্যাল লিমিটেড কারখানার সুপারভাইজার ছিলেন এবং তিনি নরসিংদীর ঘোড়াশাল এলাকার মৃত ইউনুছ আলীর ছেলে।

এদিকে এ কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনায় জয়দেবপুর থানার পূবাইল পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই গোলাম সারোয়ার বাদী হয়ে কারখানার মালিকসহ তিনজনের নামে এবং আরো কয়েক অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করে সোমবার জয়দেবপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার আসামিরা হলো- কারখানা মালিক গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের বসুগাঁও পশ্চিমপাড়া এলাকার মৃত ইছহাক হাওলাদারের ছেলে মো. ইমান উদ্দিন (৪৭), কারখানার ম্যানেজার মো. শাহীন (৩৫) ও জমির মালিক গাজীপুর সদর উপজেলার বড় কয়ের এলাকার দুদু বেপারির ছেলে বাছেদ বেপারী (৬৫)।

বাদী মামলায় উল্লেখ করেন, কারখানার মালিকসহ ওই তিনজন এবং অজ্ঞাত কয়েক আসামি পরস্পর যোগসাজসে সরকারি অনুমোদন ব্যতীত এবং সরকারি কোনো প্রতিষ্ঠান কর্তৃক পরীক্ষা নিরীক্ষা ব্যতীত ও আসামিদের অভিজ্ঞতা ছাড়া যে কোনো সময় বিস্ফোরণ ঘটবে ও প্রাণহানি ঘটবে জেনেও পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে শ্রমিকদের পুরাতন টায়ার গলিয়ে তেল জাতীয় পদার্থ উৎপাদন করার মত ঝুঁকিপূর্ণ কাজে উৎসাহ দিয়ে নিজ উদ্যোগে কাজ করাচ্ছিল।

এ ঘটনায় নিহতরা হলেন- খুলনার দাকোপ উপজেলার নলিয়ান গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে শফিকুল ইসলাম (২১), মাদারীপুর সদরের খামারবাড়ি এলাকার সোবহান তালুকদারের ছেলে আলহাজ (২৩), স্থানীয় বারইবাড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা সিদ্দিকা জেবুন্নেসা (৩০)। তিনি নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলার চানগাঁও গ্রামের দিলোয়ার হোসেনের স্ত্রী। এছাড়া কাখানার নিরাত্তাকর্মী স্থানীয় বসুগাঁও এলাকার আব্দুল মান্নানের ছেলে সেলিম মোল্লা (৪৫), মাদারীপুরের ডাসার থানার ভাগুরিয়া এলাকার আ. রাজ্জাকের ছেলে কাওসার বিশ্বাস (৩৪) এবং ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোববার সকালে মারা যান কারখানার সুপারভাইজার আব্দুল কাদের (৫৫) এবং সুপারভাইজার কামাল হোসেন (৪৯)।

উল্লেখ্য, শনিবার বিকেলে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের পূবাইলের স্মার্ট মেটাল অ্যান্ড ক্যামিকেল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বিস্ফোরণে টিনসেটের ওই কারখানার চাল ধসে পড়ে এবং আগুন ধরে যায়। এ সময় কারখানার পাশ্ববর্তী জয়দেবপুর-পূবাইল সড়কে দিয়ে যাওয়ার সময় অটোরিকশা যাত্রী স্কুল শিক্ষিকাসহ ৫ জন অগ্নিদগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হয। অগ্নিদদগ্ধ হয় আরো ৩ জন। টঙ্গী ও জয়দেবপুর ফায়ার সার্ভিসের ৬ কর্মীরা প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে এ ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ সুপারভাইজার আব্দুল কাদের রোববার এবং সুপারভাইজার কামাল হোসেন মঙ্গলবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

,

0 মন্তব্য(গুলি)

Write Down Your Responses

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...